টপিক: ধারাবাহিক : মিসওয়াকের মহাবিস্ময়কর রূপ (পর্ব-৩১)

১১. হরমোন থেরাপী বনাম মিসওয়াক
হরমোন থেরাপী দাঁতে একধরনের চিকিৎসা যা দ্বারা মাড়ি রোগের বিস্তার কমিয়ে দেয়। আমরা জানি মিসওয়াক মাড়ি রোগের বিস্তার কমানো শুধু নয় ভালো করেও দিতে পারে।

১২. দাঁত ও পেটের পীড়া এবং মিসওয়াক
পেটের রোগ চরম ভোগান্তিতে ফেলে। বিশেষ করে ডায়রিয়া বা পাতলা পায়খানা হলে তো কথাই নেই মনে হয় টয়লেটেই দিন যাপন করতে হবে। এছাড়া পেটের বিভিন্ন রোগ হতে পারে। চিকিৎসা বিজ্ঞানীদের মতে, মানুষের পাকস্থলীতে যে সব রোগ হয় তার মধ্যে শতকরা আশি ভাগই দাঁতের রোগের কারণে হয়ে থাকে। মানুষ যখন খাদ্য গ্রহণ করতে থাকে তখন দাঁতের ফাঁকে পূর্বের জমা থাকা খাদ্য পচার কারণে বা অন্য কারণে পুঞ্জিভূত পূঁজ খাদ্যনালী হয়ে পাকস্থলীতে এসে জমা হয়। পরবর্তীতে তা পেটের যথা পাকস্থলী, যকৃত প্রভৃতিকে আক্রমণ করে এবং রোগ সৃষ্টি করে। এসব রোগ নিরাময় করতে হলে অবশ্যই আগে দাঁতের চিকিৎসা করতে হবে। আর পূর্ব থেকেই মিসওয়াক ব্যবহার করলে দাঁতের ফাঁকে পূঁজ সৃষ্টি হতে পারে না এবং এসব পেটের পীড়া দেখা দেয় না। সুতরাং নিয়মিত মিসওয়াক করতে হবে।

আপনার আমন্ত্রণ রইল আমাদেরে এলাকায় মন্তব্য করা ও কিছু লিখার জন্য চলনবিল

Share

জবাব: ধারাবাহিক : মিসওয়াকের মহাবিস্ময়কর রূপ (পর্ব-৩১)

প্লাস রইল লেখাটির জন্য ।

ফোরামে আছি ।