Share

টপিক: একটি আয়াতের ব্যাখ্যা চাই

একজন ইসলামী বিশেষজ্ঞের কাছ থেকে জানলাম কোরবানী করা সুন্নাত। কোরবানী নাদিলে গুনাহ নেই, দিলে অনেক সওয়াব । তিনি বললেন হযরত আবুবকর (রঃ), হযরত ওমর (রঃ) তাদের খিলাফতকালে ইচ্ছা করে অনেক সময় কোরবানী দিতেননা, যাতে লোকজন এটাকে খুব গুরুত্ত্ব না দেয়।
আবুবকর (রঃ) এর থেকে একটিহাদীস আছে 'যে কোরবানী করবেনা সে যেন ঈদগাহে না আসে।' এ হাদিসটি দুর্বল। এজন্য স্কলাররা এ হাদীসটিকে বাতিল করে দিয়েছেন।
পবিত্র কোরআনের সুরা কাউসারে আল্লাহ বলেছেন
فَصَلِّ لِرَبِّكَ وَانۡحَرۡؕ (কাজেই তুমি নিজের রবেরই জন্য নামায পড়ো ও কুরবানী করো)
এ আয়াতের উপর ভিত্তিকরে আমরা ছোটকাল থেকে শুনে এসেছি নেসাব পরিমাল মাল থাকলে কোরবানী করা ওয়াজিব। এ আয়াতের আসলে সহীহ ব্যাখ্যা কী ? যারা এ ব্যপারে বিজ্ঞ তাদেরকে অনুরোধ করছি বিস্তারিত জানিয়ে বাধিত করবেন।

দেশান্তরী..

জবাব: একটি আয়াতের ব্যাখ্যা চাই

আমার জানা মতে কোরবানী করতে সচ্ছলভাবে সক্ষমদের উপর কোরবানী করা ওয়াজিব এবং না করলে গুনাহ্ হবে ।

ফোরামে আছি ।

Share

জবাব: একটি আয়াতের ব্যাখ্যা চাই

জাবেদ ভুঁইয়া wrote:

আমার জানা মতে কোরবানী করতে সচ্ছলভাবে সক্ষমদের উপর কোরবানী করা ওয়াজিব এবং না করলে গুনাহ্ হবে ।

ধন্যবাদ জাবেদ ভাই ।

দেশান্তরী..